বাংলাদেশ বনাম আফগানিস্তান – সুপার এইটের ম্যাচ এবং ফরম্যাটের পূর্বাভাস

বাংলাদেশ বনাম আফগানিস্তান

আজকের নিবন্ধে বাংলাদেশ বনাম আফগানিস্তান এর মধ্যকার ম্যাচ ভবিষ্যদ্বাণী, দলের সম্ভাব্য একাদশ, নজরে রাখার মতো খেলোয়াড় এবং পিচ ও আবহাওয়া বিষয়ক বিস্তারিত তথ্য থাকছে।

আইসিসি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সেরা আট পর্বের খেলা শুরু হয়েছে অতি সম্প্রতি। গতকাল সেরা আট এর প্রথম ম্যাচে মুখোমুখি হয় দক্ষিণ আফ্রিকা এবং যুক্তরাষ্ট্র। যেখানে যুক্তরাষ্ট্রকে ১৮ রানে হারায় দক্ষিণ আফ্রিকা। বিশ্বকাপের সুপার এইট পর্বের দ্বিতীয় ম্যাচে মুখে মুখে হয়েছিল ইংল্যান্ড এবং ওয়েস্ট ইন্ডিজ। যেখানে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ৮ উইকেটে হারিয়েছে ইংল্যান্ড।

বিশ্বকাপের সুপার আট এর বাংলাদেশের তিন প্রতিদ্বন্দ্বীর মধ্যে একজন হচ্ছে আফগানিস্থান। আগামী ২৫ জুন তারিখে মুখোমুখি হতে যাচ্ছে এই দুই চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী দল। যেটি হবে দুটি দেশের জন্যই তাদের শেষ ম্যাচ।

বাংলাদেশ বনাম আফগানিস্তান – সম্ভাব্য প্লেয়িং ইলেভেন

বাংলাদেশ বনাম আফগানিস্তান এর মধ্যকার ম্যাচটি দুটি দেশের ক্রিকেট ভক্তদের কাছেই একটি উপভোগ্য ম্যাচ হতে যাচ্ছে। এক্ষেত্রে দুটি দেশের সম্ভাব্য প্লেয়িং ইলেভেন কিরূপ হতে পারে সেটি দেখার চেষ্টা করবো নিচে।

তবে উল্লেখ্য একাদশটি কেবল বিগত ম্যাচগুলোর অনুরূপ। ম্যাচে কিছুটা পরিবর্তন আসতে পারে।

বাংলাদেশের বিপক্ষে আফগানিস্থানের সম্ভাব্য একাদশ

রশিদ খান (অধিনায়ক, রহমানুল্লাহ গুরবাজ, ইব্রাহিম জাদরান, আজমাতুল্লাহ ওমরজাই, নাজিবুল্লাহ জাদরান, মোহাম্মদ নবী, গুলবাদিন নায়েব, করিম জানাত, নূর আহমদ, নবীন-উল হক, ফজল হক ফারুকী।

আফগানিস্থানের বিপক্ষে বাংলাদেশের সম্ভাব্য একাদশ

নাজমুল হোসেন শান্ত (অধিনায়ক), তাসকিন আহমেদ, লিটন দাস, তানজিদ হাসান তামিম, সাকিব আল হাসান, তাওহিদ হৃদয়, মাহমুদ উল্লাহ রিয়াদ, জাকের আলী অনিক, রিশাদ হোসেন, মুস্তাফিজুর রহমান, তানজিম হাসান সাকিব।

এই পর্যায়ে দুটি দলের মধ্যকার বিগত হেড টু হেড পারফরম্যান্স বিশ্লেষণ করে নেওয়া এক।

হেড টু হেড পরিসংখ্যান অনুযায়ী কোন দল আসন্ন ম্যাচে সবচেয়ে এগিয়ে সেটি দেখার চেষ্টা করবো।

বাংলাদেশ বনাম আফগানিস্তান – হেড টু হেড তুলনা

টি টোয়েন্টি বিশ্বকাপের মঞ্চে আফগানিস্থান এবং বাংলাদেশ মুখোমুখি হয় কেবল একবার। যেখানে বাংলাদেশ জয়ের দেখা পেয়েছিল। অন্যদিকে, আন্তর্জাতিক ঘরোয়া সিরিজে দুটি দল সর্বমোট ১১ বার মুখোমুখি হয়। যেখানে বাংলাদেশ জয় পেয়েছিল ৫টি ম্যাচে এবং আফগানিস্থান জয় পেয়েছিল ৬টি ম্যাচে।

এক্ষেত্রে পরিসংখ্যান অনুযায়ী দেখা যায়, দুটি দলই পরিসংখ্যানের ভিত্তিতে এগিয়ে রয়েছে।

এক্ষেত্রে কেউ করো থেকে পিছিয়ে নেই। আসন্ন বিশ্বকাপে আফগানিস্থান এবং বাংলাদেশের মধ্যে একটি চিরপ্রতিদ্বন্দ্বিতা দেখা যেতে পারে।

টিম ওভারভিউ: দেখার মত খেলোয়াড়

আফগানিস্তান এবং বাংলাদেশের মধ্যকার ম্যাচে টানটান উত্তেজনাকর পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়। কেননা দুটি দেশই খেলার মাঠে চির প্রতিদ্বন্দ্বী।

আর তাই খেলার মাঠে বিশেষ কয়েকজন খেলোয়াড়দের পারফরমেন্সের উপর থাকবে বিশেষ নজর।

চলুন তবে দেখে নেয়া যাক বাংলাদেশ বনাম আফগানিস্তানের ম্যাচ কাদের পারফরমেন্সের উপর বিশেষ নজর থাকবে সেটি।

১. রহমানুল্লাহ গুরবাজ

বিশ্বকাপে সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহকের তালিকায় তৃতীয় অবস্থানে রয়েছে আফগানিস্থানের অন্যতম সেরা ব্যাটসম্যান গুরবাজ। বিশ্বকাপের সর্বমোট চারটি ম্যাচ খেলে তিনি সংগ্রহ করেছেন ১৬৭ রান।

পারফরম্যান্সের দিক থেকে দুর্দান্ত ফর্মে রয়েছেন এই ব্যাটসম্যান।

এছাড়াও ধারাবাহিক পারফরম্যান্স করে দলকে জয়ের দিকে এগিয়ে নিয়ে যেতে ভূমিকা রাখছেন প্রতিনিয়তই।

বাংলাদেশের বিপক্ষের ম্যাচে গুরবাজের পারফরম্যান্সের দিকে নজর থাকবে দর্শকদের।

২. তানজিম হাসান সাকিব

বাংলাদেশের হয়ে বিশ্বকাপে সর্বোচ্চ উইকেট শিকারি জুনিয়র সাকিব।

বিশ্বকাপে সেরা ১০ উইকেট শিকারির তালিকায় পঞ্চম অবস্থানে রয়েছেন সাকিব।

খেলার মাঠে জুনিয়র সাকিব যেন অনন্য। খেলার মাঠে তার ভয়ানক রূপ প্রতিপক্ষ ব্যাটসম্যানদের জন্য হুমকিস্বরূপ।

বিশ্বকাপে এখন পর্যন্ত ৪টি ম্যাচ খেলেছেন সাকিব, যেখানে তিনি উইকেট শিকার করেছেন সর্বমোট ৯টি। বাংলাদেশী বোলারদের মধ্যে যেটি সর্বোচ্চ।

৩. ফজল হক ফারুকী

চলমান বিশ্বকাপে আফগানিস্থানের অন্যতম নির্ভরযোগ্য একজন বোলার ফারুকী।

বিশ্বকাপে দলের হয়ে সর্বোচ্চ উইকেট শিকার করেছেন তিনি।

এছাড়াও বিশ্বকাপে সর্বোচ্চ উইকেট শিকারির তালিকায় শীর্ষে রয়েছে তার নাম।

বিশ্বকাপে এখন পর্যন্ত ফারুকী ম্যাচ খেলেছে ৪ টি, যেখানে তিনি উইকেট শিকার করেছেন সর্বমোট ১২টি। বাংলাদেশের বিপক্ষের ম্যাচে ফারুকীর হাতের যাদুর অপেক্ষায় থাকবে ক্রিকেট বিশ্ব।

৪. মুস্তাফিজুর রহমান

বর্তমান সময়ে বাংলাদেশের অন্যতম অভিজ্ঞ এবং নির্ভরযোগ্য একজন পেসার মুস্তাফিজুর রহমান। গত ম্যাচে বাংলাদেশের হয়ে দুর্দান্ত ব্রেক থ্রু নিয়ে আসে এই পেসার।

বিশ্বকাপে বাংলাদেশের হয়ে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ উইকেট শিকার করেন ফিজ।

৪ ম্যাচ খেলে ফিজ উইকেট শিকার করেছেন সর্বমোট ৭টি, যেখানে তিনি সর্বোচ্চ উইকেট শিকারির তালিকায় দশম অবস্থানে রয়েছে।

আফগানিস্তানের বিপক্ষে ফিজের কাটার যাদু দেখার অপেক্ষায় থাকবে ক্রিকেট অনুরাগীরা।

৫. তাওহীদ হৃদয়

বর্তমানে বাংলাদেশের তরুণ ব্যাটসম্যানদের মধ্যে মারমুখী ব্যাটসম্যান হিসেবে হৃদয়ের নাম বলা যায়। বাংলাদেশের হয়ে সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক হৃদয়। প্রতিপক্ষের বিপক্ষে কঠিন সময় চোখ ধাঁধানো শট খেলতে পারদর্শী বাংলাদেশী এই ব্যাটার।

খেলার মাঠে ফিল্ডিং এবং ব্যাটিং উভয়ে দুর্দান্ত পারফর্ম করে থাকে হৃদয়।

আর তাই আফগানিস্তানের বোলারদের জন্য হৃদয় হয়ে উঠতে পারেন হুমকি।

আফগানিস্তানের বিপক্ষে তাওহীদ হৃদয়ের পারফরম্যান্সের দিকে বিশেষ নজর থাকবে।

এছাড়াও আফগানিস্থান দলের অধিনায়ক রশিদ খানের পারফরম্যান্স নজর কাড়তে পারে দর্শকদের।

বাংলাদেশ বনাম আফগানিস্তান – ফরম্যাট এবং কৌশল

বাংলাদেশ বনাম আফগানিস্থানের ম্যাচটি হবে টি-টোয়েন্টি ফরমেটে। ২০ ওভারের মধ্যেই দুটি দলের খেলা অনুষ্ঠিত হবে। আফগানিস্তান এবং বাংলাদেশ দুটি দলের কৌশল হবে ব্যাটিং কেন্দ্রিক।

কেননা পারফরম্যান্স বিবেচনায় দুটি দলের বোলিং লাইনআপ অত্যন্ত ভালো।

আর তাই লড়াইটা হবে সমানে সমানে। সুপার এইট এর শেষ ম্যাচে দর্শকদের জন্য আকর্ষণীয় এক লড়াই অপেক্ষা করছে।

পিচ এবং আবহাওয়ার অবস্থা

বাংলাদেশ এবং আফগানিস্থানের মধ্যকার ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হবে ওয়েস্ট ইন্ডিজের আর্নোস ভেইল স্টেডিয়ামে। যেখানে ব্যাটসম্যানদের তুলনায় বোলাররা সবচেয়ে বেশি সফল হিসেবে বিবেচনা করা হয়।

বিশেষ করে স্পিনারদের ক্ষেত্রে দুর্দান্ত এই পিচ।

এটিকে বোলিং পিচ হিসেবে বিবেচনা করা হয়। এছাড়াও ম্যাচের দিন আবহাওয়া অবস্থা স্বাভাবিক থাকতে পারে।

উপসংহার

আজকের নিবন্ধে বাংলাদেশ বনাম আফগানিস্তান এর মধ্যকার ম্যাচের বিস্তারিত তথ্য করা হয়েছে।

বিশেষজ্ঞদের ভবিষ্যৎবাণী অনুযায়ী উক্ত ম্যাচে বাংলাদেশের জয়ের সম্ভবনা ৫৫%, যেখানে আফগানিস্তানের জয়ের সম্ভবনা ৪৫%। অর্থাৎ দুটি দলের মধ্যেই একটি দুর্দান্ত লড়াই হতে যাচ্ছে ক্যারিবিয়ানদের মাঠে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *