বিশ্বকাপে সেরা আট – প্রত্যাশিত দল যারা যোগ্যতা অর্জন করবে

বিশ্বকাপে সেরা আট

আইসিসি পুরুষ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের খেলা অনেকদূর এগিয়েছে। ইতিমধ্যেই পয়েন্ট তালিকা দেখে বোঝা যাচ্ছে কোন ৮ দল বিশ্বকাপে সেরা আট এর জন্য কোয়ালিফাই করতে সক্ষম। তবে বেশ কয়েকটি দলের জন্য রয়েছে জটিল সমীকরণ। আজকের নিবন্ধে সুপার এইট কোয়ালিফাই করার মতো সম্ভাব্য ৮ দল নিয়ে আলোচনা করা হবে।

বিশ্বকাপের বেশ কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচ মাঠে গড়িয়েছে। দলগুলো সুপার এইট এর মঞ্চে সুযোগ পাওয়ার জন্য লড়াই করে যাচ্ছে। বিশ্বকাপ পর্বের গ্রুপ পর্ব আসরে প্রায় ৩২টি ম্যাচ ইতিমধ্যে খেলা হয়ে গিয়েছে। যেখানে আর কেবল ৮টি ম্যাচ গ্রুপ পর্বের সমাপ্তি টানবে।

বিশ্বকাপে অংশ নেওয়া সর্বমোট ২০টি দলকে ৪টি গ্রুপে ভাগ করা হয়েছে, যেখানে প্রতিটি গ্রুপেই ৫টি করে দল রয়েছে। গ্রুপ পর্বে প্রতিটি দল সর্বমোট ৪টি করে ম্যাচ খেলবে, যেখানে ইতিমধ্যে বেশ কয়েকটি দল বিশ্বকাপে সেরা আট পর্বে সুযোগ করে নিয়েছে।

বর্তমান অবস্থান এবং বিশ্বকাপে সেরা আট গ্রুপ বিশ্লেষণ

২০২৪ বিশ্বকাপ পয়েন্ট তালিকায় গ্রুপ “এ” থাকা দলগুলো হলো ভারত, যুক্তরাষ্ট্র, পাকিস্থান, কানাডা, আয়ারল্যান্ড। যেখানে ভারত এবং যুক্তরাষ্ট্র সেরা আট এর জন্য কোয়ালিফাই করেছে। অন্যদিকে পাকিস্থান, কানাডা এবং আয়ারল্যান্ড বাদ পড়েছে গ্রুপ পর্ব থেকে।

# গ্রুপ “বি” তে থাকা দলগুলো হচ্ছে অল্ট্রেলিয়া, স্কটল্যান্ড, ইংল্যান্ড, নামিবিয়া, ওমান। অস্ট্রেলিয়া ইতিমধ্যেই কোয়ালিফাই করেছে সুপার আট পর্বে। ইংল্যান্ড এবং স্কটল্যান্ড এর মধ্যে একটি দল সুযোগ পাবে সুপার আট পর্বে।

গ্রুপ “সি” তে রয়েছে আফগানিস্থান, ওয়েস্ট ইন্ডিজ, নিউজিল্যান্ড, উগান্ডা, পাপুয়া নিউ গিনি। এই গ্রুপ থেকে সুপার আট পর্বে কোয়ালিফাই করেছে আফগানিস্তান এবং ওয়েস্ট ইন্ডিজ।

গ্রুপ “ডি” তে রয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকা, বাংলাদেশ, নেদারল্যান্ডস, নেপাল এবং শ্রীলঙ্কা। এই গ্রুপ থেকে দক্ষিণ আফ্রিকা ইতিমধ্যে কোয়ালিফাই করেছে। বাংলাদেশ, নেপাল বা নেদারল্যান্ডস থেকে একটি দল সুযোগ পাবে সুপার আট পর্বে খেলার।

বিশ্বকাপে সেরা আট – দলের ব্রেকডাউন

এই পর্যায়ে প্রত্যেকটি গ্রুপে থাকা দলগুলোর সুপার আট সম্ভবনা বিশ্লেষণ করা হবে।

গ্রুপ এ

এখানে ভারত এবং যুক্তরাষ্ট্র ইতিমধ্যে সুপার আট পর্বে খেলার যোগ্যতা অর্জন করেছে।

গ্রুপে থাকা বাকি তিনটি দল পাকিস্থান, কানাডা এবং আয়ারল্যান্ড বিশ্বকাপ গ্রুপ পর্ব থেকে বিদায় নিয়েছে।

গ্রুপ বি

এই গ্রুপে অস্ট্রেলিয়া ৩টি ম্যাচ খেলে ৩টিতেই জয় ছিনিয়ে নেওয়ার মাধ্যমে সুপার আট পর্বে খেলার যোগ্যতা অর্জন করেছে।

নামিবিয়া এবং ওমান বাদ পড়েছে গ্রুপ পর্ব থেকে। তবে স্কটল্যান্ড এবং ইংল্যান্ড এখনও একটি করে ম্যাচ খেলবে, যেটির ফলাফলের উপর তাদের সুপার আটে খেলা নির্ভর করছে। স্কটল্যান্ড ৩ ম্যাচ খেলে অর্জন করেছে ৫ পয়েন্ট, অন্যদিকে ইংল্যান্ড ৩ ম্যাচ খেলে ৩ পয়েন্ট অর্জন করেছে। এক্ষেত্রে শেষ ম্যাচে স্কটল্যান্ড জয় পেলেই তারা খেলবে সুপার আট। অন্যদিকে ইংল্যান্ড নামিবিয়ার বিপক্ষে জয় পেলে এবং স্কটল্যান্ড অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে হেরে গেলে নেট রান রেটে এগিয়ে থাকার কারণে তারা খেলবে সুপার আট।

গ্রুপ সি

গ্রুপ সি তে আফগানিস্থান এবং ওয়েস্ট ইন্ডিজ ইতিমধ্যেই তাদের সুপার আট পর্বের খেলা নিশ্চিত করেছে।

উক্ত গ্রুপে থাকা বাকি তিনটি দলের মধ্যে নিউজিল্যান্ড, নিউ গিনি এবং উগান্ডা বাদ পড়েছে গ্রুপ পর্ব থেকেই।

উগান্ডা বাদে বাকি চার দল খেলবে আর একটি করে ম্যাচ।

তবে পয়েন্ট তালিকায় শীর্ষে থাকায় আফগানিস্থান এবং ওয়েস্ট ইন্ডিজ ইতিমধ্যে সুপার আট পর্বে খেলার যোগ্যতা অর্জন করেছে।

গ্রুপ ডি

দক্ষিণ আফ্রিকা ৪ ম্যাচের সবগুলোতে জয় পেয়ে সুপার ৮ এর খেলা নিশ্চিত করেছে।

অন্যদিকে নেদারল্যান্ডস এবং বাংলাদশ রয়েছে দ্বিতীয় দল হিসেবে সুপার আট পর্বে খেলার সুযোগ।

বাংলাদেশ ৩ ম্যাচ খেলে তাদের পয়েন্ট সংখ্যা ৪। নেদারল্যান্ডস খেলেছে তিনটি ম্যাচ এবং তাদের পয়েন্ট সংখ্যা ২।

অন্যদিকে নেপাল ৩ ম্যাচ খেলে পয়েন্ট অর্জন করেছে ১।

এক্ষেত্রে বাংলাদেশ যদি নেপালের বিপক্ষে জয় পায় তবে তাদের সুপার আট নিশ্চিত।

তবে নেদারল্যান্ডস যদি শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে জয় পায় এবং বাংলাদেশ যদি নেপালের বিপক্ষে হেরে যায়, এক্ষেত্রে নেট রান রেটের সমীকরণ মেলাতে হবে।

বাংলাদেশ নেট রান রেট এগিয়ে রয়েছে নেদারল্যান্ডস এর তুলনায়।

এক্ষেত্রে নেদারল্যান্ডসকে অবশ্যই বড় ব্যবধানে জয় পেতে হবে।

দেখার জন্য মূল ম্যাচ

সুপার আট পর্বে ইতিমধ্যেই বেশ কয়েকটি দল তাদের জায়গা নিশ্চিত করেছে।

যেখানে ইতিমধ্যেই কয়েকটি দেখার মতো ম্যাচ ক্রিকেট ভক্তদের জন্য অপেক্ষা করছে।

সুপার আট আসরে বর্তমান সময়ের সবচেয়ে বড় একটি ম্যাচ হতে পারে ভারত বনাম অস্ট্রেলিয়ার মধ্যকার ম্যাচ।

যেটি ২৪ জুন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। এছাড়াও বাংলাদেশ যদি নেপালকে হারিয়ে সুপার আট কোয়ালিফাই করতে সক্ষম হয়, তবে বাংলাদেশী দর্শকদের জন্য দেখার মত কয়েকটি ম্যাচ রয়েছে। সুপার আট কোয়ালিফাই করতে পারলেই টাইগাররা প্রথম ম্যাচে অস্ট্রেলিয়ার মুখোমুখি হবে এবং দ্বিতীয় ম্যাচে মুখোমুখি হবে ভারতের।

এক্ষেত্রে তৃতীয় ম্যাচে তারা মুখোমুখি হবে আফগানিস্থানের।

এই সমীকরণ তখনই কার্যকর হবে যখন বাংলাদেশ নেপালকে হারিয়ে সুপার আট নিশ্চিত করবে।

সম্ভাব্য বিপর্যস্ত এবং ডার্ক হর্স

সুপার আট পর্বে ইতিমধ্যে কোয়ালিফাই করা দলগুলোর মধ্যে বিপর্যস্ত এবং ডার্ক হর্স বিবেচনা করা যেতে পারে।

ইতিমধ্যে কোয়ালিফাই করা দলগুলোর মধ্যে বিপর্যস্ত দল হিসেবে বিবেচনা করা যেতে পারে ভারত এবং দক্ষিণ আফ্রিকা।

অন্যদিকে, ডার্ক হর্স হতে পারে যুক্তরাষ্ট্র, ওয়েস্ট ইন্ডিজ এবং আফগানিস্থান।

তবে বাংলাদেশ এবং স্কটল্যান্ড সুপার আট পর্বে উঠলে দুটি দলকে সম্ভাব্য ডার্ক হর্স হিসেবে বিবেচনা করা যেতে পারে।

অধিকন্তু ইংল্যান্ড কোয়ালিফাই করলে তারা সম্ভাব্য ডার্ক হর্স হতে পারে।

বিশ্বকাপে সেরা আট প্রেডিকশন

ইতিমধ্যে ভারত, অস্ট্রেলিয়া, আফগানিস্থান, যুক্তরাষ্ট্র, ওয়েস্ট ইন্ডিজ এবং দক্ষিণ আফ্রিকা সুপার আট নিশ্চিত করেছে।

বাকি দুটি দল কারা হবে সেটি এখনও নিশ্চিত নয়, তবে পয়েন্ট তালিকা অনুযায়ী সম্ভাব্য দুটি দল হিসেবে বিবেচনা করা যেতে পারে বাংলাদেশ এবং স্কটল্যান্ডকে।

তবে স্টটল্যান্ড এর পরিবর্তে ইংল্যান্ডও সুপার আট খেলতে পারে।

উপসংহার

আজকের পর্বে বিশ্বকাপে সেরা আট সম্পর্কে বিস্তারিত ধারণা দেওয়ার চেষ্টা করেছি আপনাদের।

ইতোমধ্যে আপনারা বুঝতে পেরেছেন বিশ্বকাপের পরবর্তী পদক্ষেপ কেমন হতে যাচ্ছে। আপনার মতামত অনুযায়ী কোন দুটি দল শেষ দুটি দল হয়ে সুপার আট পর্বে খেলবে সেটি মন্তব্য করে জানিয়ে দিতে পারেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *