সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদ এর বিস্ফোরক ফর্ম তাদের প্লে অফে নিয়ে যেতে পারে?

সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদ

বিগত কয়েক আসরের তুলনায় নিজেদের পারফরম্যান্স দেখিয়ে অনেকটা যাদু দেখাচ্ছে সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদ । ২০ ওভারের খেলায় রেকর্ড গড়া রান দিয়ে নজর কেড়েছে ক্রিকেট বিশ্বের। অনেকেই বলছেন এটি টি টোয়েন্টি নয় বরং ওডিআই। সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদের বিস্ফোরক ফর্ম তাদের প্লে অফে নিয়ে যেতে পারবে? আজকের নিবন্ধে মূলত সেটিই জানার চেষ্টা করব।

সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদ সর্বমোট ম্যাচ খেলেছে ১১টি, যেখানে তারা ৬টি ম্যাচে জয় পেয়েছে এবং বাকি ৫টি ম্যাচে তারা হেরেছে। ৬ম্যাচে ১২ পয়েন্ট নিয়ে -০.০৬৫ নেট রান রেট নিয়ে তালিকায় চতুর্থ অবস্থানে রয়েছে দলটি।

বর্তমান মৌসুমে সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদ এর কর্মক্ষমতা পর্যালোচনা

২০২৪ আইপিএল মৌসুমটি কিছুটা বিগত আসরের তুলনায় ভিন্নভাবে শুরু করেছে হায়দ্রাবাদ। কেননা ২০২৪ মৌসুমে তাদের রয়েছে যত কীর্তি গড়ার রেকর্ড।

মৌসুমের প্রথম ম্যাচ কলকাতার কাছে ৪ রানে হেরে যায় হায়দ্রাবাদ। কিন্ত দ্বিতীয় ম্যাচে আইপিএল ইতিহাসের সর্বোচ্চ রানের রেকর্ড গড়ে হায়দ্রাবাদ। মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স এর বিপক্ষে ২০ ওভার শেষে ৩ উইকেট হারিয়ে হায়দ্রাবাদ সংগ্রহ করে ২৭৭ রান।

উক্ত ম্যাচে ৩১ রানে জয় পায় হায়দ্রাবাদ। নিজেদের ষষ্ট ম্যাচে আবারও ইতিহাস গড়ে হায়দ্রাবাদ।

নিজেদের গড়া ২৭৭ রানের রেকর্ড ভাঙে রয়েল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালুরুর বিপক্ষে ২৮৭ রানের পাহাড়সম সংগ্রহের মাধ্যমে।

পরবর্তী ম্যাচেও ২৬৬ রানের একটি বড় ইনিংস দেখা যায় হায়দ্রাবাদের প্লেয়ারদের ব্যাট থেকে।

আইপিএলে শুরু থেকেই ভয়ানক রূপে দেখা গিয়েছিল হায়দ্রাবাদ দলকে। তবে শেষ ৫ ম্যাচের ৪টিতেই হেরেছে হায়দ্রাবাদ।

যেখানে তাদের বাকি রয়েছে ৩টি ম্যাচ। এক্ষেত্রে হায়দ্রাবাদ যদি প্লে অফ পর্যন্ত নিজেদের কোয়ালিফাই করতে চায় তবে তাদের অবশ্যই অন্তত দুটি ম্যাচে জয় পেতে হবে। একটি ম্যাচে জয় পেলেও হায়দ্রাবাদ দলের জন্য কিছুটা সুযোগ থাকতে পারে, তবে এক্ষেত্রে অবশ্যই জটিল সমীকরণ মেলাতে হতে পারে।

সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদ এর বিস্ফোরক ফর্মে অবদান রাখার কারণগুলি

২০২০ থেকে ২০২৩ সাল পর্যন্ত পরপর তিন মৌসুম সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদ বাজে ফর্মের মধ্য দিয়ে গিয়েছে।

তবে চলমান মৌসুমে হায়দ্রাবাদ দলের প্লে অফে খেলা এখন কেবল সময়ের অপেক্ষা।

তবে চলমান মৌসুমে হায়দ্রাবাদের এই দুর্দান্ত ফর্মে থাকার পেছনে বেশ কিছু কারণ রয়েছে। নিচে কয়েকটি উল্লেখযোগ্য কারণ উল্লেখ করা হলো।

১. সঠিক প্লেয়ার নির্বাচন

আইপিএলে কোন দল কতদূর পর্যন্ত যেতে পারে সেটি অনেকটাই নির্ভর করে ফ্র্যাঞ্চাইজি সংগঠনের খেলোয়াড় নির্বাচনের ক্ষেত্রে। দলের প্রয়োজন অনুযায়ী খেলোয়াড় নির্বাচন করা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। বিগত মৌসুমে তাই হায়দ্রাবাদ ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলো ব্যর্থ ছিল।

২. খেলোয়াড়দের ফর্ম

খেলোয়াড়দের দুর্দান্ত ফর্মে থাকা হায়দ্রাবাদ দলের এই পর্যন্ত আসার পেছনে সবচেয়ে বড় ভূমিকা রেখেছে। হায়দ্রাবাদের হয়ে ট্রাভিস হেড এখনও পর্যন্ত ১০ ম্যাচ খেলে ৪৪৪ রান সংগ্রহ করেছে, যেটি ২০২৪ আইপিএলের পঞ্চম সর্বোচ্চ রান সংগ্রহ। এছাড়াও দলের বাকি খেলোয়াড়দের দুর্দান্ত ফর্ম হায়দ্রাবাদের এই পর্যন্ত আসার বড় কারণ।

৩. টিম ম্যানেজমেন্ট

একটি দলের টিম ম্যানেজমেন্টের উপর ম্যাচের ফলাফলের অনেকটা অংশ নির্ভর করে থাকে। হায়দ্রাবাদের টিম ম্যানেজমেন্ট তাদের দুর্দান্ত ম্যানেজমেন্ট এর প্রমাণ দিয়েছে হায়দ্রাবাদের মাঠের খেলার মধ্য দিয়ে।

৪. অভ্যন্তরীণ সম্পর্ক

ক্রিকেটে একটি দলের প্রত্যেক খেলোয়াড়দের পারফরম্যান্স এবং সম্পর্ক ভালো রাখা অত্যন্ত জরুরী। দলের প্রত্যেক খেলোয়াড়দের মধ্যকার সম্পর্ক এবং বোঝাপড়া ভালো হলে সর্বোচ্চ দলীয় পারফরম্যান্স বের করে আনা সম্ভব হয়। আর তাই খেলোয়াড়দের মধ্যকার সম্প্রীতি হায়দ্রাবাদের ফর্মে থাকার একটি বড় কারণ।

. দুর্দান্ত গেমিং কৌশল

খেলার সঠিক কৌশল নির্ধারণে উপর অনেককিছু নির্ভর করে থাকে। যে দলের গেমিং কৌশল বা পরিকল্পনা যত ভালো সে দলের ম্যাচ জয়ের সম্ভবনা তত বেশি হয়।

হায়দ্রাবাদের জয়ের আরেকটি মূলমন্ত্র দুর্দান্ত গেমিং কৌশল অবলম্বন।

উপরে উল্লেখিত ৫টি বিষয়বস্তু হায়দ্রাবাদ দলের বর্তমান বিস্ফোরক ফর্মে থাকার পেছনে প্রভাব বিস্তারকারী কারণ হিসেবে বলা যেতে পারে।

পূর্ববর্তী মৌসুমের সাথে তুলনা

চলমান আইপিএল মৌসুম হায়দ্রাবাদ দলের জন্য একটি স্বস্তির কারণ হতে পারে। কেননা বিগত তিন বছরের বাজে পারফরমেন্স থেকে বের হয়ে এখন হায়দ্রাবাদ দল প্লে অফে যাওয়ার পথে।

২০২১ আইপিএল মৌসুমে সর্বশেষ অষ্টম অবস্থানে ছিল হায়দ্রাবাদ। উক্ত মৌসুমে ১৪টি ম্যাচ খেলে কেবল ৩টিতে জয় পায় দলটি।

২০২২ মৌসুমে ১০টি দলের মধ্যে হায়দ্রাবাদ দলের অবস্থান ছিল পয়েন্ট তালিকার অষ্টম পর্যায়ে।

১৪ ম্যাচের কেবল ৬টি ম্যাচেই জয় পেয়েছিল দলটি। পরের বছরও একইভাবে ব্যর্থ সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদ।

১৪ ম্যাচ খেলে কেবল ৪টি ম্যাচে জয় নিয়ে ৮ পয়েন্টের সাথে পয়েন্ট টেবিলের সর্বশেষ অবস্থানে ছিল হায়দ্রাবাদ।

২০২০ সালের পর আবারও তিন বছর পর পয়েন্ট তালিকায় টপ ফোরে জায়গা করে নিতে সক্ষম হয়েছে হায়দ্রাবাদ।

জয়ের ধারাবাহিকতা অব্যাহত থাকলে আইপিএলের ট্রফি জয়ের স্বপ্নটা সত্যি হতে পারে দলটির।

অবশিষ্ট ফিক্সচারের পরীক্ষা

সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদ ইতিমধ্যেই ম্যাচ খেলেছে ১১টি, যেখানে তারা ৬ ম্যাচে জয়ের দেখা পেয়েছে।

হায়দ্রাবাদ এর পরবর্তী তিনটি ম্যাচের প্রথমটি হবে লখনউ সুপার জায়েন্টস এর বিপক্ষে, দ্বিতীয়টি হবে গুজরাট টাইটানস এর বিপক্ষে এবং সবশেষ ম্যাচটি হবে পাঞ্জাব কিংস এর সাথে।

মূল্যবান ৪টি পয়েন্ট তালিকায় যুক্ত করতে পারলেই ৩ বছর পর হায়দ্রাবাদের প্লে অফে খেলার স্বপ্ন পূরণ হবে।

চ্যালেঞ্জ এবং বাধা

২০২৪ আইপিএলে প্লে অফে খেলতে হলে এখনও পর্যন্ত অন্তত ২টি ম্যাচে জয় পেতে হবে সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদের।

যেটি হায়দ্রাবাদের জন্য একটি বড় চ্যালেঞ্জ এবং বাধা হতে পারে।

আইপিএলে হায়দ্রাবাদের শেষ তিনটি ম্যাচ হতে চলেছে সুপার জায়েন্টস, গুজরাট এবং পাঞ্জাবের সাথে।

যেখানে দুটি ম্যাচে জয় পেলে হায়দ্রাবাদের প্লে অফ পর্যন্ত যাওয়া নিশ্চিত বলা যায়। সুতরাং সাময়িক এই চ্যালেঞ্জের সম্মুখীন হতে হবে হায়দ্রাবাদ দলকে।

নজরে রাখার জন্য মূল খেলোয়াড়

অবশিষ্ট তিন ম্যাচে খেলার ক্ষেত্রে হায়দ্রাবাদের কিছু উল্লেখযোগ্য খেলোয়াড়দের উপর বিশেষ নজর থাকবে ক্রিকেট অনুরাগীদের। নিচে নজরে রাখার মতো ৫ খেলোয়াড়ের নামের তালিকা প্রকাশ করা হলো।

উল্লেখিত খেলোয়াড়দের ফর্মের উপর হায়দ্রাবাদের জয় অনেকাংশে নির্ভর করে।

১. এইডেন মার্করাম
২. ট্র্যাভিস হেড
৩. হেনরিক ক্লাসেন
৪. প্যাট কামিন্স
৫. অভিষেক শর্মা

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *